চারিদিকে সবাই ন্যাড়া হচ্ছেন! কিন্তু কেন?

রেইনা - ডিম চ্যালেঞ্জ

করোনা ভাইরাসের কারনে বিশ্ব জুড়ে সকল খেলোয়াড়রা পড়েছেন বিপদে। এখন কোন খেলা বা অনুশীলন নেই, তাই তাদের ব্যাস্ত জীবন অনেকটাই থমকে গেছে। স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে প্রায় সবাই স্বেচ্ছাবন্দী। আর তারকা খেলোয়াড়রাও পর্যাপ্ত নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য নিয়েই বন্দী হয়ে আছেন। ফলে আক্ষরিক অর্থে ঘর থেকে বের হতে পারছেন না অধিকাংশ খেলোয়াড়। কিন্তু হঠাৎ করে পাওয়া এই অবসর কিভাবে কাজে লাগানো যায় তা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন অনেকে।

এক-ঘেয়েমি কাটাতে অনেকে অনেক চেষ্টাই করছেন। ক্রিকেটার-রা বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে নিজেদের প্রিয় মুহূর্ত, প্রিয় ক্রিকেটার বা প্রিয় দল নিয়ে বলছেন। কিন্তু ফুটবলাররা এই ব্যাপারে আরেকটু তৎপর। প্রথমে টয়লেট টিস্যু পেপার নিয়ে কসরত দেখিয়েছেন অনেক ফুটবলাররা। তরুণ সব ফুটবলারদের দেখে তাদের সাথে লিওনেল মেসিও যোগ দিয়েছিলেন।

শুধু টয়লেট পেপারই নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত কয়েকদিনে অনেক কিছুই ছড়িয়ে। ঘরে বসে ডালগোনা, কফি বানানো, ঝাড়ু দণ্ড দাঁড় করিয়ে রাখা চ্যালেঞ্জগুলো বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আর এখন বর্তমানে চলছে নতুন একটি ট্রেন্ড, তা হচ্ছে মাথা ন্যাড়া করা। অনেক ফুটবলারদের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রায় বেশীরভাগ মানুষই মাথা ন্যাড়া করেছেন বা করতে নেমে গেছেন। কিন্তু কেন এই মাথা ন্যাড়া?

বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এই প্রশ্নের উত্তর হবে, হয়তো গরম কমাতে। লক-ডাউনের দিনে সেলুনে গিয়ে চুল কাটানোর উপায় না থাকায় বেশীরভাগ মানুষের কাছে ন্যাড়া করাটাই যেন সুবিধাজনক। তবে ফুটবলারদের ক্ষেত্রে ন্যাড়া হওয়ার মুল ভূমিকা রাখছেন হোসে হিমেনেজ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের এই ডিফেন্ডার হঠাৎ একদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি প্রশ্ন তোলেন, তা হচ্ছেঃ ‘টয়লেট পেপার, ঝাড়ুদণ্ড আরো অনেক চ্যালেঞ্জই হলো। এবার দেখা যাক, আসলে কার ডিম আছে?’

এই চ্যালেঞ্জ নিয়েই ফুটবলাররা সবাই তাদের মাথা কামাতে শুরু করেছেন। রিয়াল মাদ্রিদ এবং স্প্যানিশ কিংবদন্তি ক্যাসিয়াসও মাথা ন্যাড়ার ছবি দিয়েছেন। রদ্রিগো মরেনো এবং এডেন হ্যাজার্ড নিজেদের চুল কেটে ফেলেছেন। ফেরান তোরেস এবং ম্যাক্সি গোমেজও সেই পথে হেঁটেছেন। এমনকি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও নিজের খোঁপা বাঁচিয়ে আশপাশের সব চুল কেটে ফেলেছেন।

তবে সম্ভাব্য সেরা উপায়ে এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছেন পেপে রেইনা। সাবেক লিভারপুল-এর এই গোলরক্ষক একটি ভিডিও দিয়েছেন। সেখানে দেখা গেছে যে, টেবিলের ওপর পাশাপাশি মোট চারটি ডিম রাখা আছে। আর কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর হঠাৎ করেই একটি ন্যাড়া মাথা উঠে আসে। তিনটি আসল ডিমের মাঝে তিনি নিজের টাক মাথা লুকিয়ে রেখেছিলেন! তাই এখন পর্যন্ত ‘ডিম চ্যালেঞ্জ’-এ বিজয়ী আছেন রেইনাই!

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নিউজ