নামাজ

হয়রত ইবনে আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) আব্বাস ইবনে আব্দিল মুত্তালিব (রাঃ) -কে বলেছেন, হে চাচা! আমি কি আপনাকে দেব না? আমি কি আপনাকে প্রদান করব না? আপনি চার রাকাত নামাজ পড়বেন। প্রতি রাকাত নামাজে সুরা ফাতিহা সাথে অন্য একটি সুরা পড়বেন। প্রথম রাকাতে যখন কিরাত পড়া শেষ করবেন, দাঁড়ানো অবস্থায় ১৫ বার বলবেনঃ
“সুবহানাল্লাহ, ওয়াল হামদু লিল্লাহ, ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার”

এরপর রুকুতে যাবেন এবং রুকু অবস্থায়ও দোয়াটি ১০ বার পড়বেন। এরপর রুকু থেকে সোজা হয়ে দাড়িয়ে ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদায় যাবেন, সিজদারত অবস্থায়ও ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদা থেকে মাথা উঠিয়ে অতঃপর ১০ বার পড়বেন। এরপর আবার সিজদায় যাবেন এবং সিজদারত অবস্থায়ও ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদা থেকে মাথা উঠাবেন তারপর ১০ বার পড়বেন। এই হলো প্রতি রাকাতে ৭৫ বার। একইভাবে আপনি চার রাকাতেই অনুরূপ করে পড়বেন।

যদি আপনি প্রতিদিন এই আমল করতে পারেন, তবে তাই করুন। আর যদি তা না পারেন, তবে অন্তত প্রতি জুমাবারে একবার করুন। যদি প্রতি জুমাবারেও না পারেন, তবে প্রতি মাসে একবার করুন আর যদি তা-ও না পারেন, তাহলে জীবনে একবার হলেও করুন।

যখন দ্বিতীয় রাকাতে তাশাহুদ পড়ার জন্য বসবেন তখন আগে ওই তাসবিহ ১০ বার পড়বেন, তারপর তাশাহুদ পড়বেন। কিন্তু তাশাহুদের পর তাসবিহ পড়বেন না। তারপর আল্লাহু আকবার বলে তৃতীয় রাকাতের জন্য উঠবেন। অতঃপর তৃতীয় রাকাত এবং চতুর্থ রাকাতেও উক্ত নিয়মে ওই তাসবিহ পাঠ করবেন।

কোনো স্থানে ওই তাসবিহ পড়তে সম্পূর্ণ ভুলে গেলে বা নির্দিষ্ট সংখ্যার চেয়ে কম পড়লে পরবর্তী যে রুকুতে স্মরণ আসবে, সেখানে তথাকার সংখ্যার সঙ্গে ভুলে যাওয়া সংখ্যাগুলোও আদায় করে নেবেন। আর এই নামাজে কোনো কারণে সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হলে সেই সিজদা এবং তার মধ্যকার বৈঠকে এই তাসবিহ পাঠ করতে হবে না। তাসবিহর সংখ্যা স্মরণ রাখার জন্য আঙুলের কর গণনা করাও যাবে না, তবে আঙুল চেপে স্মরণ রাখাতে পারেন। (সূত্রঃ আবু দাউদ, হাদিসঃ ১২৯৭, ইবনে মাজাহ, হাদিসঃ ১৩৮৭, সহিহ ইবনে খুজাইমা, হাদিসঃ ১২১৬, সুনানে বায়হাকি কুবরা, হাদিসঃ ৪৬৯৫)

এই হাদিসকে যাঁরা সহিহ বলেছেন তাঁরা হচ্ছেনঃ
ইমাম আবু দাউদ, হাদিসঃ ১২৯৭, (ইমাম আবু দাউদ হাদিস বলে কেউ চুপ থাকলে সেটি তাঁর কাছে সহিহ। ইবনে হাজার আসকালানি (রহঃ) বলেন, এই সনদটি হাসান। (আলখিছালঃ ১/৪১)
শায়েখ নাসিরুদ্দিন আলবানি (রহঃ) বলেছেন, হাদিসটি সহিহ। (সহিহুল জামে, হাদিসঃ ৭৯৩৭)

বি. দ্র.: সালাতুত তাসবিহ পড়ার অন্য নিয়মও রয়েছে। তবে উপরোল্লিখিত নিয়মটি অতি উত্তম।

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নিউজ