সিটি কর্পোরেশন

ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ দুই সিটি কর্পোরেশন-এ ময়লা বা বর্জ্য অপসারণের জন্য নির্ধারণ করা হয় ৩০ টাকা, কিন্তু সিটি কর্পোরেশন এর নির্ধারিত নিয়ম না মেনেই কিছু কিছু এলাকা ও ওয়ার্ড -এ কোনো রকম রশিদ ছাড়াই নেয়া হচ্ছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। এক শ্রেণির অসাধু চক্র বর্জ্য অপসারণের জন্য এই বাড়তি টাকা দাবি করছেন বলে জানা যায়।

তবে একাধিক মেয়র-কাউন্সিলর এর বরাত দিয়ে জানা যায়, বর্জ্য অপসারণের জন্য কোনো কাজের সেবামূল্য বাড়োনো হয়নি। কেউ যদি বাড়তি টাকা দাবি করে, তাকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার অনুরোধ করা হয়। কেউ বাড়তি টাকা চাইলেই পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার অনুরোধ করেন একাধিক মেয়র-কাউন্সিলর।

ধানমন্ডির কাঠাল-বাগান এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, বুধবার সকালে এক লোক চলতি মাসের জন্য বাড়তি ৫০ টাকার দাবি করে। কারণ জানতে চাইলে তিনি নাকি বলেছেন, এইটা সিটি কর্পোরেশন থেকে বাড়ানো হয়েছে।

ওই এলাকার অপর এক বাসিন্দা মো: তুহিন আলম জানান, সংগ্রহকারিরা র্দীঘদিন থেকেই ২০০ টাকা করে প্রতিটি বাসাবাড়ি ও ফ্ল্যাট থেকে আদায় করছেন। এখন নতুন সিটি নির্বাচন হওয়ার পর তারা আবার তা বাড়ানোর কথা বলছে।

ধানমন্ডির কাঠাল বাগান এলাকার কাউন্সিলর জনাব -নজরুল ইসলাম বাবুল জানান, আমারা এখনো নতুন করে শপথ নেইনি। এই সুজুগেই কিছু চক্র নানা ফন্দি-ফিকির শুরু করেছে। যদি কেউ কোন বাড়তি টাকা দাবি করে সাথে সাথে আমাকে জানাবেন। প্রয়োজনে তাকে আটক করে পুলিশে দিবেন।

এদিকে ঢাকা ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী এলাকার ৬৩/৬৪/৬৫ নম্বর ওয়ার্ডেও একই চিত্র, এখানে প্রতি ফ্লাট / ঘর থেকে নেয়া হচ্ছে ১৮০ – ২৫০ টাকা, আর প্রতিটা দোকান থেকেই নেয়া হচ্ছে ৩০০ টাকা, প্রতিটি মোড়ে মোড়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন থেকে ঝুড়ি দেয়া হয়েছে, এবং কেউ ময়লা না ফেললেও নাকি মাসে ৩০০ টাকা দিতেই হবে -এমনও বলা হচ্ছে, আমরা উক্ত সমস্যার সমাধান স্রদ্ধেও কাউন্সিলর সাহেবদের নিকট আশা করি, আশা করি তারা খুব শীঘ্রই এই সমস্যার একটি সমাধান দিবেন।

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নিউজ