স্বাস্থ্য

যে কোনো ভাইরাস / ব্যাকটেরিয়া শরীরকে তখনই কাবু (আক্রমণ) করতে পারে যখন মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় বা হ্রাস পায়।
চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়ঃ

রঙিন ফলমূল ও শাক-সবজিঃ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রয়োজন নানা ধরনের উপাদান, এই উপানের অনেকটাই পাওয়া যায় শাক-সবজি, রঙিন ফলমূলের মধ্যে। তাই প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় অবশ্যই শাক-সবজি, রঙিন ফলমূল এসব রাখার চেষ্টা করুন।

প্রয়োজনীয় টিকা দিনঃ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য সব প্রয়োজনীয় টিকা দেয়া থাকতে হবে। যারা প্রাপ্তবয়স্ক তারা ভ্যাকসিন রিফ্রেশ করতে ভুলবেন না! বিশেষ করে পোলিও, ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস, হুপিং কাশি, মেনিনজাইটিস, হাম, ইনফ্লুয়েঞ্জা এবং এমন অন্যান্য রোগের টিকা সময়মত নিন।

সঠিক ঘুমঃ ঘুম শরীরকে শুধু বিশ্রামই দেয় না, গভীর ঘুমের মাধ্যমে শরীরের নিউরোট্রান্সমিটার ছড়িয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে সচল রাখে শরীর।

ফুরফুরে মেজাজঃ সমীক্ষায় জানা যায়, শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার জন্য ভালো মন-মেজাজ এবং জীবনে আনন্দ থাকার এক বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। আমরা নিজেরাও জানি যে, তুলনামূলকভাবে হাসি-খুশি মানুষের অসুখ/বিসুখ কমই হয়ে থাকে।

মানসিক চাপ কমানঃ বর্তমান বিশ্বে “স্ট্রেস বা মানসিক চাপ” বহুল উচ্চারিত একটি শব্দ। তবে এর নেতিবাচক চাপ শরীরের কর্টিসোলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, ফলে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা কমে যায়। তাই এই চাপ কমাতে শরীরের ব্যাটারিকে রি-চার্জ করুন, অর্থাৎ নিয়মিত যোগ-ব্যায়াম, মেডিটেশন টাইপের কিছু করুন।

নিয়ম করে হাঁটুনঃ সকালের তাজা বাতাস এবং পায়ে হাঁটা দুটোই শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতার ভারসাম্য বজায় রাখতে অতুলনীয় ভূমিকা রাখে। আর মুক্ত বাতাসে হাঁটার সময় শরীরে রক্ত সঞ্চালনও ঠিকভাবে হয়, তাই নিয়ম করে প্রতিদিন অন্ততপক্ষে ২ কি.মি. পথ পায়ে হাঁটার অভ্যাস করুন।

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নিউজ