হরতালের প্রভাব নেই রাজধানীতে

হরতাল

বিএনপির ডাকা রোববারের সকাল-সন্ধ্যা হরতালে রাজধানীর -জনজীবনে তেমন প্রভাব পড়েনি। দোকানপাট যেমন খুলেছে, তেমনি রাস্তায়ও আছে স্বাভাবিক যান চলাচল।

ঢাকার দুই সিটি করোপরেশন নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে দলের মহাসচিব -মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর রোববার হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা দেন। বিএনপির হরতালের সাথে সমর্থন দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ঐক্যফ্রন্টের দপ্তর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম শনিবার রাতে সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক এবং পাড়া মহল্লা ঘুরে দেখা গেছে, দোকানপাট অন্যান্য দিনের মতোই খোলা। সড়কের যান চলাচলও স্বাভাবিক। পাশাপাশি ব্যক্তিগত গাড়িও চলছে সুন্দর ভাবে।

রোববার সকালে মিরপুর, ফার্মগেইট, তেজগাঁও, মোহাম্মদপুর, শ্যামলী, আসাদগেইট, ডেমরা, যাত্রাবাড়ী এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন গন্তব্যের বাস চলছে আগের মত। এ ছাড়া এসব এলাকায় বেশির ভাগ দোকানপাটও খোলা রয়েছে।
জনাব করিম জানান, তিনি সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে তেজগাঁও এলাকায় এসেছেন বাসে চড়ে। রাস্তায় কোথাও হরতালের সমর্থনে কোনো মিছিল বা বাধা দেওয়ার দৃশ্য তিনি দেখেননি। তিনি বলেন, রাস্তায় হরতালের কোনো প্রভাব আমার চোখে পড়েনি। রাস্তার দুই পাশে গাড়ির চাপ ছিল সাধারন দিনের মত অনেক বেশি। মনেই হয়নি আজ যে হরতাল।

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে / পয়েন্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, হরতালের সমর্থনে এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো মিছিল / মিটিং বা বাধা দেওয়ার ঘটনা ঘটেনি।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খোঁজ/খবর নিয়ে জানা গেছে, সেখানে স্বাভাবিকভাবে সব ধরনের ক্লাস এবং পরীক্ষাও চলছে।

রাজধানীর নয়াপল্টন -এ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

এদিকে হরতাল ঘোষণার পর -তা কঠোরভাবে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। পরিবহনমালিক – শ্রমিকেরাও হরতালে গাড়ি চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন।

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নিউজ