ভাদাইমা আর কোন খারাপ ভিডিও বানাবে না

10
vadaima

ডাক – টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী জনাব মোস্তাফা জব্বারের নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে এবার তিনি ভাদাইমা সংক্রান্তে ভাদাইমা এর অভিনেতা, ভাদাইমা চ্যানেলের এডমিন ও মালিকসহ তিনজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। সোমবার বিকালে সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের অফিসে নিয়ে তাদের অনেক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। রাতে ছাড়া পাওয়ার আগে আর কোন অশ্লীল শর্টফিল্মের ভিডিও আর ছাড়বেন না বলে মুচলেকা দেন এবং দেশ ও জাতির কাছে ক্ষমা চান ভাদাইমাসহ ওই আটককৃত তিনজন। একই সঙ্গে এমন কাজের জন্য তারা খুব দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি এবং ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার বা এডিসি নাজমুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, মাননীয় মন্ত্রী জনাব মোস্তাফা জব্বার স্যারের নেতৃত্বে নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে আজ ভাদাইমা সংক্রান্তে ভাদাইমা চয়েস এর অভিনেতা, চ্যানেলের এডমিন ও মালিকসহ তিনজনকে আমাদের অফিসে এনে জিজ্ঞাসাবা করা হয়েছে। তারা সবাই অনুতপ্ত এবং তারা সাইবার ক্রাইম ইউনিটে মুচলেকা দিয়েছে যে, তারা আর কখনও এ ধরনের ভিডিও তৈরি ও বাজারজাত করবে না। কিন্তু সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন তাদের কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখবে। কাউন্সেলিং শেষ হলে তারা রাত ৯টায় অত্র অফিস ত্যাগ করে। সুতরাং যারাই ইন্টারনেটকে কলুষিত করবে বা করার চেষ্টা করবে তাদেরকেই আইনের আওতায় আনা হবে। রেশমী অ্যালেন এবং ভাদাইমাসহ অন্যান্য অনেকেই এই তালিকায় রয়েছে। ভাদাইমা বলেন, অশ্লীল অনেক কিছু করেছি। সে সুবাদে আমি আপনাদের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আমি ছোট মানুষ, দয়া করে আপনারা আমাদের ক্ষমা করবেন। বাংলাদেশে আরো অনেক ভাদাইমা রয়েছে, যারা অশ্লীল ভিডির সঙ্গে জড়িত আমি তাদের বলব এ সমস্ত অশ্লীল কাজগুলো আপনারা বন্ধ করেন। এগুলো সমাজের জন্য অনেক ক্ষতিকর।

ডাক – টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী জনাব মোস্তাফা জব্বারে নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে এর আগে মডেল সানাই মাহবুব সুপ্রভা ও ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরকে ডেকে কাউন্সিলিং করা হয়।

– নিউজ ডেস্ক / খলিফা নেটওয়ার্ক।